Home / মুন্সিগঞ্জের খবর / গজারিয়া উপজেলা / রাস্তা নির্মানের প্রতিশ্রুতি দিল ইউপি চেয়ারম্যান

রাস্তা নির্মানের প্রতিশ্রুতি দিল ইউপি চেয়ারম্যান

স্টাফ রিপোর্টার মুন্সীগঞ্জঃ
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বীরতারা ইউনিয়নের নিমতলী গ্রামের বাসিন্দাদের প্রায় ৪০ বছরের দাবি নিমতলী-নন্দনকোনা পর্যন্ত একটি সড়কের জন্য। জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন সময়ে প্রতিশ্রুতি দিলেও প্রায় ৪০ বছরের এখান দিয়ে একটি কাচা সড়ক ও নির্মান করা হয়নি। অথচ ভোট এলে নেতারা এলাকায় আসেন। ভোটার দের দেন নানা ধরনে প্রতিশ্রুতি। ভোট শেষ হলে কেউ এম পি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার হন। পরে আর তারা খোঁজ নেন না অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। উপজেলা সদর থেকে মাত্র ৪ কিলো মিটার দুরত্ব বীরতারার মূল সড়ক। সড়কটির সংযোগ থেকে প্রায় ২৭/২৮ শত ফুট দুরেই নিমতলী গ্রাম। অথচ মাত্র ১৩ শত ফুট দৈঘ্য ও ১০/১২ ফুট প্রস্থের একটি সরকারী রেকডিয় সড়ক থাকলেও বাস্তবে তার কোন মিল নেই। নিমতলী থেকে নন্দনকোনা পর্যন্ত রেকডিয় সড়কটি মাটি ভরাট করে নির্মান করা হলে উপজেলা সদরের সঙ্গে অন্তত ৪/৫ কিলোমিটার দূরত্ব কমে আসতো।
এলাকাবাসীরা জানায়, নিবার্চনের আগে জনপ্রতিনধিরা আমাদের সড়কটি নির্মান করে দিবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয় পড়ে তারা জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করেনা। সড়কটি বাস্তবায়ন না হওয়ায় আমরা চরমভোগান্তির শিকার হচ্ছি। বর্ষা মৌসুমে নৌকাই এখান কার মানুষের এক মাত্র মাধ্যম। বিশেষ করে প্রশুতি মা, শিশু, ও বৃদ্ধদেও স্বাস্থ্যকেন্দ্র নিতে সব চেয়ে বেশি দূর্ভোগ পোহাতে হয়। এছারা স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার কয়েক শত ছাত্র-ছাত্রীর চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিভাগীয় শহর ঢাকা সহ জেলা,উপজেলায় কর্মরত ব্যক্তিদের পরতে হচ্ছে নানা ধরনের সমস্যায়। বর্ষা মৌসুমে ছোট ছোট শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুকি নিয়ে নৌকায় পারাপার হয়ে থাকে। অবিভাবকেরা প্রতি মুহুর্তে তাদের সন্তনদের নিয়ে থাকছেন দূশ্চীন্তয়। শুকনো মৌসুমে আবাদি জমির পাশ দিয়ে অনেকটা পথ ঘুরে গন্তব্যে সঠিক সময়ে পৌছাতে পারছেননা। নিমতলী হতে নন্দন কোনা পর্যন্ত রেকডীয় সড়কটি যদি ৮/১০ ফুট উচ্চতায় মাটি ভরাট করে নির্মান করা হত। তবে ক্ষানিকটা হলেও জনগনের ভোগান্তী হতে রেহাই পেত। এলাকাবাসীর দির্ঘ দিনের প্রানের দাবি অতিসত্তর মান চিত্রের রেকডীয় সড়কটি আবাদি জমির মালিদের দখল হতে উদ্ধার ব্যবস্থা করে নির্মান করা হলে প্রায় ৪০ বছরের চাওয়া পাওয়ার অবসান ঘটবে।
বীরতারা ইউপি চেয়ারম্যান মো.আজিম খান জানান, আমি এলাকাবাসী সাথে কথা বলেছি তাদের আশস্ত করেছি বরাদ্দ পেলে তাদের রাস্তা নির্মানের জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *