Home / আন্তর্জাতিক / মিশরের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ

মিশরের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক :  মিশরের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রতি সিনাইয়ের একটি ভিডিও ফাঁস হয়ে গেলে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠে।

ভিডিওতে দেখা যায়, সৈন্যরা বন্দিদের গুলি করে হত্যার পর তা বন্দুকযুদ্ধ বলে চালিয়ে দেয়। খবর আলজাজিরার।

বৃহস্পতিবার তুরস্কের এক টেলিভিশন চ্যানেলে ফাঁস হওয়া ভিডিওটি প্রচার হয়। এতে দেখা যায়, ইউনিফর্ম পরিহিত সৈন্যরা চোখ বাধা দুই ব্যক্তিকে মাথায় গুলি করে হত্যা করে।

ভিডিওতে দেখা যায়, সেনা পোশাক পরিহিত কয়েকজন ব্যক্তি চোখ বাঁধা বন্দিদের তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করছে। পাশাপাশি তাদের নির্যাতন চালাচ্ছে।

এসবের মধ্যেই একজন সেনা সদস্য চোখা বাঁধা ব্যক্তিদের একজনের মাথায় গুলি করে। তখন অন্য সেনা সদস্য বলে উঠে কেবল মাথায় নয়, শরীরেও গুলি কর। পরে মৃত বন্দির শরীরেও গুলি করা হয়।

তবে আলজাজিরা নিরপেক্ষ কোনো সূত্র থেকে ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি।

অন্যদিকে মিশরীয় সরকার সাংবাদিকদের সিনাই উপদ্বীপের ঘটনাবলী সম্পর্কে রিপোর্ট করার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

মিশরের সেনা কর্তৃপক্ষ অবশ্য একটি বিস্ফোরক ভাণ্ডারের পাশে গুলি করে হত্যা করা ব্যক্তিদের বন্দুকযুদ্ধে নিহত বলে দাবি করে ছবি পোস্ট করে।

মানবাধিকার গবেষক আহমেদ মেফরি জানান, এ ধরনের বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড যুদ্ধাপরাধের শামিল।

এর আগে গত মাসে মিশরীয় সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে চারজনকে বিচারবহির্ভূতভাবে হত্যার অভিযোগ তোলে।

মিশরের সিনাই উপত্যকায় দীর্ঘদিন ধরে সশস্ত্র সংগ্রাম চলে আসছে। বিশেষ করে ২০১৩ সালের মাঝামাঝি সময়ে মুসলিম ব্রাদারহুডের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুরসিকে উৎখাতের পর এ আন্দোলনে গতি সঞ্চার হয়।-বিডিটুডে

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *