Home / মোবাইল টিপস / ঢাকা বিভাগ / শ্রীনগর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শকের বিরুদ্ধে জগনন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের অভিযোগ

শ্রীনগর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শকের বিরুদ্ধে জগনন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের অভিযোগ

শ্রীনগর(মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ-পুলিশের উধবর্তন কতৃপক্ষের কাছে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) রহমত আলীর বিরুদ্ধে সরকারী দায়িত্ব পালনে অবহেলা ও রাষ্ট্রের ক্ষতি সাধনের অভিযোগ করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) কর্তৃপক্ষ। পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজির কাছে লিখিত এক চিঠির মাধ্যমে এ অভিযোগ জানান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ডঃনূর মোহাম্মদ। গত ১৭ এপ্রিল মঙ্গলবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর। ঐ চিঠিতে বলাহয় গত ১২ এপ্রিল আনুমানিক ৫ টায়। শ্রীনগর ছনবাড়ী নামক এলাকায় জাবি শিক্ষক ও শিক্ষার্থী পরিবহন বাসে করিম গ্রুপের মাটি কাটা ভেকু/ইসকেভেটার দিয়ে গাড়ির বাম পাশের মাঝখানে আঘাত করে ক্ষতি সাধণকরে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শ্রীনগর থানায় যোগাযোগ কড়লে পুলিশ আসে। কিন্তু কর্মরত এসআই মোঃ রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ী চালকের কাছে গাড়ির কাগজ পত্র দেখতে চাইলে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ির ড্রাইভার মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, গাড়ির কাগজ পত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সংরক্ষিত আছে। এ কথা শোনার সঙ্গে সঙ্গে এসআই ক্ষিপ্ত হয়ে আতিককে চরথাপ্পর মারতে থাকেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে ফোনের মাধ্যমে অবগতি করা হয়। সরকারি দায়িত¦ পালনে অবহেলা রাষ্ট্রের সম্পত্তি ক্ষতি সাধন ও নির্বিচারে সরকারী কর্মচারীকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করাকে বেআইনি কাজ বলে প্রতীয়মান হয়। এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সিয়াম বলেন, আমরা ভেবেছিলাম পুলিশ এলে ঘটনাটি সুরাহা হবে। কিন্তু সুরাহাতোদুরের কথা এসআই রহমত আলী ঘটনা উস্কে দিয়ে এলাকাবাসী ও করিম গ্রুপের কর্মচারিদের মারমুখী করে তোলেন। সেই সাথে জাবির বাস চালক আতিককে মারধর ও চড়থাপ্পর মারে। বাসের কাগজ পত্র যদি না থাকে তবে রাষ্ট্রীয় আইনে মামলা করতে পারেন পুলিশ। কিন্তু এসআই রহমানআলী কোন আইনে নিরাপরাধ ব্যাক্তির শরীরে হাত তুলতে পারেন না। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলাম বলেই নিজেদের সংবরণ করেছিলাম। এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আলমগীর হোসেন বলেন, এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলার আওতায় তদন্ত চলছে।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *