Home / বাংলাদেশ / ঢাকা বিভাগ / ভিআইপিদের কারণে সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্তি

ভিআইপিদের কারণে সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্তি

মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে যাত্রীদের চাপ কিছুটা কমলেও ভোগান্তির শেষ নেই ॥ ৩ শতাধিক যান বাহন পারাপারের অপেক্ষায়
লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
ঈদের ছুটিতে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা যাত্রীদের চাপ শিমুলিয়া ঘাটে কিছুটা কমে এসেছে। তবে যাত্রী ভোগান্তি এখনো কমেনি। শনিবার সকালে যাত্রীদের উপচে পরা ভীর থাকলেও দুপুর থেকে অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। দুপুরে ঘাটে ৩ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। যাত্রীদের অভিযোগ ভিআইপি যাত্রীদের কারণে সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে। স্পীড বোট ও লঞ্চ ঘাটে যাত্রীদের চাপ কিছুটা কমে এসেছে। তবে ফেরি ঘাটে ভীন্নরুপ। এছাড়া লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়ার কারণে মুনমুন এক্সপেসকে মোবাইল কোর্টএর মাধমে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় ৩০ মি. লঞ্চ ঘাট থেকে ছাড়েনি। পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে মালিকরা লঞ্চ চলাচল চালু করেন।
লঞ্চ মালিকরা জানান তারা ভাড়া বেশী নিচ্ছেন না এবং অতিরিক্ত যাত্রী নিচ্ছেন না তারপরও তাদের খেসারত দিতে হচ্ছে।
যাত্রীরা অনেকে অভিযোগ করে বলেন, সকাল ৭ টায় আবার কেউ ৯ টায় ঘাটে এসেছেন। ৩ শতাধিক ছোট গাড়ি পারাপরের অপেক্ষায় রয়েছে। ফেরিতে উঠার সিরিয়াল পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে তাদের। ঘাটে ঠিকমত ফেরি পাওয়া যায় না এবং ভিআইপিদের সিরিয়াল দিতে পুলিশ ব্যাস্ত। তাদের জন্য সাধারণ যাত্রীদের পরতে হচ্ছে চরম ভোগান্তিতে।
মাওয়া অঞ্চল নৌ পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম জানান, পর্যাপ্ত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোক রয়েছে। যাত্রীরা নির্ভিগ্নে যাতায়াত করছে। এখনো কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা দুপুরে ঘাট এলাকা পরিদর্শনে এসে জানান, আগে ১৬ টা ফেরি ছিল এখন আরো দুইটি ফেরি বারিয়েছি। বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএ ও নৌ পুলিশের সহায়তায়,ছোট গাড়িকে অগ্রাধীকার বেশি দিয়ে পার করা হচ্ছে তবে ফেরির কেপাসিটি অনুযায়ি গাড়ি পার হচ্ছে। সকাল ৭টা থেকে কোন গাড়ি দুপুর পর্যন্ত অপেক্ষা করছে এমনটা আমার মনে হচ্ছে না। আমি ঘাট এলাকা ঘুরে দেখেছি। আপনারা আরেকটু ভাল করে দেখুন। #

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *