Home / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / সিরাজদিখানে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত শিল্পীরা

সিরাজদিখানে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত শিল্পীরা

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃআর কয়েকদির পরেই সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা। এ উপলক্ষে সারা দেশের ন্যায় মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলায় ১৪ ইউনিয়ন থাকলেও উপজেলার ১টি ইউনিয়নের নেই সনাতন ধর্মালম্বী। তাই ১৩ টি ইউনিয়নে ৯৭টি পূজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে জোর গতিতে। কাশফোটা শরতের শারদীয় দূর্গাউৎসবকে পূর্ণরূপ দিতেই মন্দিরগুলোতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। প্রতিমা শিল্পীরা কল্পনায় দেবীদূর্গার অনিন্দ্যসুন্দর রূপ দিতে দিন-রাত চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। নিখুত হাতের কারুকার্য দিয়ে সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত তৈরি করছে প্রতিমা। পূজার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই যেন ব্যস্ত হয়ে পরেছের শিল্পীরা। সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঘিরে হিন্দুপাড়াগুলোতে আগাম শারদীয় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। উঁচু নিচুর বিভেদ ভূলে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে একত্র করে মহাসম্মেলন হয় বলে এ পূজাকে বলা হয় সার্বজনীয় পূজা। আর শরৎকালে হয় বলে বলা হয় শারদীয় উৎসব। হিন্দু সম্প্রদায়ের দূর্গতীনাশীনী দূর্গাদেবীকে বরণ করে নিতে মন্ডপে মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ সহ সাজসজ্জার কাজ চলছে। লক্ষ্য করা গেছে ইতোমধ্যে অনেক মন্ডপে মাটির কাজ প্রায় শেষ করে ফেলেছে শিল্পীরা। মূর্তী গড়া শেষে রং তুলির আঁচরে ফুটিয়ে তোলা হবে প্রতিমা। দেবীকে স্বাগত জানাতে সর্বত্র অনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে।

সিরাজদিখান উপজেলা পূজা উদযাপন কমিরি সভাপতি গবিন্দ দাস জানান, এবছর ৯৭ টি পূজা মন্ডপে পূজা উদযাপন করা হবে। বর্তমান সরকার প্রতিটি মন্ডপেই আর্থিক সহায়তা করে থাকে তবে এবছর এখনো জানা যায়নি কি পরিমান আর্থিক সহায়তা পাবো। প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও প্রশাসনর আইন সৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে সহায়তা পাবো বলে আমি আশি করি।

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *